পাথরকুচির গুণাগুণ

সুবর্ণ স্বাস্থ্য কর্ণার ডেস্ক : প্রাচীনকাল থেকে চিকিৎসার ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়ে আসছে ঔষধি গাছ পাথরকুচি। পাথরকুচি পাতা কিডনির পাথর অপসারণ, কিডনি ও গলগণ্ডের পাথর অপসারণ করতে সাহায্য করে।

এছাড়াও দিনে দু’বার ২ থেকে ৩টি পাতা চিবিয়ে অথবা রস করে খেলে জন্ডিস নিরাময় করতে ও লিভারের যে কোনো সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে তাজা পাথরকুচি পাতা ও এর রস অনেক উপকারী। উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ ও মূত্রথলির সমস্যা থেকে পাথরকুচি পাতা মুক্তি দেয়।

জেনে নিন পাথরকুচি পাতার ওষুধি গুণাগুণ সম্পর্কে-
পেট ফাঁপা : অনেক সময় দেখা যায় পেট ফুলে গেছে, প্রসাব আটকে আছে। সে ক্ষেত্রে একটু চিনির সঙ্গে এক বা দুই চা-চামচ পাথর কুচির পাতার রস গরম করে খেলে উপকার পাওয়া যাবে। পানির সঙ্গে মিশিয়েও খেতে পারেন।

মৃগী রোগে : মৃগী রোগাক্রান্ত সময়ে পাথর কুচির পাতার রস ২-১০ ফোঁটা করে মুখে দিতে হবে। একটু পেটে গেলেই রোগের উপশম হবে।
শিশুদের পেট ব্যথায় : শিশুর পেটব্যথা হলে, ৩০-৬০ ফোঁটা পাথর কুচির পাতার রস পেটে মালিশ করলে ব্যথার উপশম হয়।
ত্বকের যত্ন : পাথরকুচি পাতায় প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

পাইলস : পাথরকুচি পাতার রসের সঙ্গে গোল মরিচ মিশিয়ে পান করলে পাইলস ও অর্শ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
উচ্চ রক্তচাপ : উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এবং মুত্রথলির সমস্যা থেকে পাথরকুচি পাতা মুক্তি দেয়।

শরীর জ্বালাপোড়া : দু-চামচ পাথর কুচি পাতার রস, আধা কাপ গরম পানিতে মিশিয়ে দুবেলা খেলে জ্বালাপোড়া উপশম হয়।

শেয়ার করুনঃ

39 thoughts on “পাথরকুচির গুণাগুণ”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

    রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০